দেখুন পৃথিবীর অদ্ভুত কিছু যৌন নিয়ম, যা দেখলে চোখ কপালে উঠবে আপনার!! ভিডিও দেখুন

0
9429

পৃথিবীর অদ্ভুত কিছু যৌন আইন, যা দেখলে আপনার মাথা ঘুরে যাবেঃ বিশ্ব এখন অনেক আধুনিক হয়েছে।







সভ্যতার ছোয়ায় মানুষ এখন অনেক কিছু শিখেছে। অনেক ভ্রান্ত বিশ্বাস এখন নেই সমাজে। তারপরও কিছু কিছু দেশে এমন সব আইন প্রচলিত আছে







যা দেখলে আপনার চোখ কপালে ওঠবে। ভাববেন এই আধুনিক সমাজেও এমন বর্বর মানুষ বাস করে। আজকে দেখুন এমনই কিছু যৌন আইন যা দেখলে আপনি অবাক না হয়ে পারবেন না। ভিডিওটি সম্পূর্ন দেখবেন।







ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন।

ভিডিওটি পোষ্টের নিচে দেয়া আছে। ভিডিওটি দেখতে স্ক্রল করে পোষ্টের নিচে চলে যান।







যে সময়ে স্বামী স্ত্রী মিলন ইসলামে হারাম – সকল মুসলমানদের জানা উচিৎ


আমরা অনেকেই হয়ত ইসলামিক শরীয়ত মোতাবেক সহবাসের স্বাভাবিক নিয়ম বা পন্থা সম্পর্কে জানি না। এখানে এ বিষয়ে একটু ধারণা দেয়া হলো যদিও হাদি থেকে বিভিন্ন আসনে সহবাস করার দৃষ্টান্ত পাওয়া যায়।

তবে সহবাসের স্বাভাবিক পন্থা হলো এই যে, স্বামী উপরে থাকবে আর স্ত্রী নিচে থাকবে। প্রত্যেক প্রাণীর ক্ষেত্রেও এই স্বাভাবিক পন্থা পরিলক্ষতি হয়।সর্বপরি এদিকেই অত্যন্ত সুক্ষভাবে ইঙ্গিতকরা







১। রাত্রি দ্বি-প্রহরের আগেসহবাস করবে না।

২। ফলবান গাছের নিচে স্ত্রী সহবাস করবে না।

৩। সহবাসের প্রথমে দোয়াপড়বেন। স্ত্রী সহবাসের দোয়া।তারপর স্ত্রীকে আলিঙ্গন করবেন।স্ত্রী যদি ইচ্ছা হয় তখন তাকে ভালো বাসা দিবে এবং আদর সোহাগ দিবে। চুম্বন দিবে। তখন উভয়ের মনের পূর্ণ আশা হবে সহবাস।তখন বিসমিল্লাহ বলে শুরু করবেন।







৪। স্ত্রী সহবাস করার সময় নিজের স্ত্রীর রূপ দর্শন শরীর স্পর্শন ও সহবাসের সুফলের প্রতি মনো নিবেশ করা ছাড়া অন্য কোনো সুন্দরি স্ত্রী লোকের বা অন্য সুন্দরী বালিকার রুপের কল্পনা করিবে না। তাহার সাহিত মিলন সুখের চিন্তা করবেন না। স্ত্রীর ও তাই করা উচিৎ।

৫। রবিবারে সহবাস করবেন না।

৬। স্ত্রীর হায়েজ-নেফাসের সময় উভয়ের অসুখের সময় সহবাস করবেননা।

৭। বুধবারের রাত্রে স্ত্রীর সহবাস করবেন না।







৮। চন্দ্র মাসের প্রথম এবং পনের তারিখ রাতে স্ত্রী সহবাস করবেন না।

৯। স্ত্রীর জরায়ু দিকে চেয়ে সহবাস করবেন না। ইহাতে চোখেজ্যোতি নষ্ট হয়ে যায়।

১০। বিদেশ যাওয়ার আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করবেন না।

১১। সহবাসের সময় স্ত্রীর সহিত বেশি কথা বলবেন না।

১২। নাপাক শরীরে স্ত্রী সহবাসকবেন না।

১৩। উলঙ্গ হয়ে কাপড় ছাড়া অবস্থায় স্ত্রী সহবাস করবেন না।







১৪। জোহরের নামাজের পরে

স্ত্রী সহবাস করবেন না।

১৫। ভরা পেটে স্ত্রী সহবাস করবেন না।

১৬। উল্টাভাবে স্ত্রী সহবাস করবেন না।

১৭। স্বপ্নদোষের পর গোসল না করে স্ত্রী সহবাস করবেন না।

১৮। পূর্ব-পশ্চিম দিকে শুয়ে স্ত্রী সহবাস করবেন না।







আপনি কি জানেন রোজ ৩টি করে ডিম খেলে কী হতে পারে…

কোলেস্টেরল বেড়ে যাবে। ওজন বাড়বে হু-হু করে। এই সব শুনে আপনি হয়তো ডিম খাওয়াই বন্ধ করে দিয়েছেন। তাই তো?
গরম সেদ্ধ ডিম চোখের সামনে দেখেও নিজেকে সংযত করে ফেলছেন। ভুল করছেন। হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন। আপনি ভুল করছেন।
সাম্প্রতিক গবেষণা ও সমীক্ষায় চিকিত্‍‌সকরা যা বলছেন, তা আপনার ধারণার সঙ্গে একেবারেই মেলে না। জানেন কি? ভালো থাকার জন্য রোজ দুই থেকে ৩টি ডিম খাওয়া উচিত। ডিম কতটা শরীরের জন্য় উপকারী, সাম্প্রতিক গবেষণাই তার প্রমাণ।







১। হৃদরোগের সম্ভাবনা কমায়
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লুইসিয়ানার বায়োমেডিক্যাল রিসার্চ সেন্টারের গবেষণায় ১৫২ জন অতিস্থুল ব্যক্তিদের তিনটি গোষ্ঠীতে ভাগ করা হয়। এক গোষ্ঠীকে বলা হয়, ব্রেকফাস্টে যা ইচ্ছে তাই খেতে। দ্বিতীয় দলকে বলা হয়, ব্রেকফাস্টে দুটি করে ডিম খেতে। তৃতীয় গোষ্ঠীকে বলা হয় ব্যাগেলস খেতে। রেজাল্টে দেখা গিয়েছে, যাঁরা রোজ দুটি করে ডিম খেয়েছেন, তাঁরা বাকি দুই গোষ্ঠীর থেকে ৬৫ শতাংশ বেশি ওজন ঝরিয়েছেন ও ৩৫ শতাংশ পেটের মেদ ঝরিয়েছেন।

ডিমে থাকা প্রচুর পরিমাণ ওমেগা-৩ রক্তে থাকা ট্রাইগ্লিসারিড লেভেল কমিয়ে আনতে সাহায্য করে। যার জেরে হৃদরোগের সম্ভাবনা কমে।







২। প্রসবজনীত সমস্যার ঝুঁকি কমায়
একটি ডিমে ০.৭ মিলিগ্রাম ভিটামিন B9 থাকে, যাকে ফলিক অ্যাসিডও বলা হয়। গর্ভাবস্থায় শরীরে ফলিক অ্যাসিডের পরিমাণ কম হলে শিশুর সেন্ট্রাল নার্ভাস সিস্টেম ঠিক মতো তৈরি হয় না। ফলে নার্ভের রোগের সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

৩। বয়সকে ধরে রাখে
বার্লিনের বিখ্যাত হেল্থ সেন্টার Charité-র গবেষণা বলছে, ডিম ত্বকের বলিরেখা পড়তে দেয় না। ফলে বয়স বৃদ্ধিজনীত ত্বকের সমস্যা কমিয়ে দেয়। চামড়ায় উজ্জ্বলতা আনে। ত্বকের ক্যান্সারও রোধ করে। চিকিত্‍সা বিজ্ঞানীদের মতে, ডিমের কুসুমে প্রাকৃতিক হলুদ রং থাকে। ওই রঙে প্রচুর পরিমাণ ক্যারোটেনয়েড থাকে। যা ত্বককে উজ্জ্বল করে।

৪। ক্যান্সারের সম্ভাবনা কমায়
গবেষণায় দেখা গিয়েছে, একটি ডিম স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি ১৮ শতাংশ কমিয়ে দেয়। শরীরে ইস্ট্রোজেন হরমোনের ক্ষরণ বাড়িয়ে স্তন ক্যান্সারের সম্ভাবনা কমিয়ে দেয়।







৫। চুল, ত্বক ও লিভার ভালো রাখে
ডিমে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন B12, বায়োটিন ও প্রোটিন থাকে। যা চুলের বৃদ্ধি ও চামড়ার জন্য খুবই উপকারী। বিশেষ করে ডিমের কুসুম চুলের জন্য দারুণ উপকারী।

৬। চোখ ভালো রাখে
ডিমে থাকা প্রচুর পরিমাণ লিউটিন, ভিটামিন A ও zeaxanthin চোখের জন্য খুবই উপকারী। দিনের আলোয় চোখের উপর যে চাপ পড়ে, তা কমিয়ে দেয়। দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়।







৭। ওজন কমায়
ডিম শরীরে ব্যাড ফ্যাট জমতে দেয় না। খিদের মাত্রা কমায়। গুড ফ্যাট ওজন ঝরাতে সাহায্য করে।

৮। হজম ক্ষমতা বাড়ায় ও সুস্থ রাখে
ডিমে থাকে choline, যা শরীরে মেটাবলিজমের জন্য অত্যন্ত উপকারী। ফলে এনার্জি তৈরি হয়। ওজন ঝরে। গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে প্রিম্যাচিওর বেবি হওয়ার সম্ভাবনা কমায়।

৯। শরীরের হাড় মজবুত করে
ডিমে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন D পরিমাণ বেশি থাকায়, হাড় ও দাঁত মজবুত করে। জয়েন্ট পেইন হওয়ার সম্ভাবনা কমায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here