সবাইকে অবাক করে সরাসরি যাকে দুষলেন মাহমুদউল্লাহ

0
65

ভারতের বিপক্ষে আমারাদের জয় অধরাই রয়ে গেল। প্রতিবেশি দেশটির বিপক্ষে নিদাহাস ট্রফির প্রথম মুখোমুখিতে হারের পর দ্বিতীয় দেখায়ও হেরেছে বাংলাদেশ। এই পরাজয়কে কে কিভাবে ব্যাখা করবেন জানা নেই। তবে এটা স্বীকার করে নিতে হবে হাইভোল্টেজ ম্যাচে এখনো আমাদের দূর্বলতা বিরাজমান। ভারতসহ বড় দলগুলোর বিপক্ষে নামার আগেই মনস্থির থাকে, হেরে যাবো না তো? অর্থাৎ বনের বাঘে খাওয়ার আগে একবার মনের বাঘে খেয়ে ফেলে আমাদের টাইগারদের।







যার যেমন ব্যাখা থাকুক না কেন ভারতের

বিপক্ষে ১৭ রানে হারের অনেক ব্যাখ্যাই দিলেন মাহমুদউল্লাহ। তার প্রথম আফসোসের কেন্দ্রবিন্দু বোলিং এবং পরেরটা নিশ্চিত ব্যাটিং। বলেছেন, আমার আর মুশফিকের জুটিটা বড় করা দরকার ছিল। আমি বাজে বলে আউট হয়েছি। ওটাকে ছক্কা মারা উচিত ছিল।







তবে এই ম্যাচ নিয়ে আর বেশি না ভেবে পরের ম্যাচটা নিয়ে ভাবা উচিত। যে জায়গাগুলোতে কাজ করা দরকার, সেগুলো নিয়ে কাজ করলে, পরিকল্পনা মেনে খেলতে পারলে, ভালো কিছু সম্ভব। ’ অর্থাৎ এ ক্ষেত্রে দোষটা সরাসরি তিনি নিজের কাঁধেই নিয়ে নিলেন।







একটি বিষয় লক্ষণীয় যে, ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে মোটে পাঁচ বোলার খেলিয়েছে বাংলাদেশ। কিন্তু সাফল্য বলতে শুধু একজনই পেয়েছেন। এ নিয়েও কথা বললেন অধিনায়ক। বললেন, প্রায় প্রতি ম্যাচেই বড় স্কোর হয়েছে। ১৮০-১৯০ বা দুই শর মতো রান হচ্ছে।







একজন বোলার কম নিয়ে খেললে ঝুঁকিটা আরও বেড়ে যায়। বোলিংয়ে পাঁচটা যথার্থ বিকল্প থাকলে ভরসা করা যায়। আমরা তাই বোলার বেশি নিয়ে খেলছি। বোলিংয়ের ওপর ভরসা ছিল আমাদের। আগের ম্যাচে টপ অর্ডার ভালো করেছে বলেই জিতেছি। আজ হয়নি।

মেয়ের রুমে ওহ আহ ব্যথা পাচ্ছি শব্দ শুনে বাবা যখন মেয়ের রুমে গেল, তখন ঘটল ভয়ঙ্কর কাণ্ড







মেয়ের রুমে ওহ আহ শব্দ শুনে- বাবা-মেয়ের সম্পর্কটিকে পৃথিবীর সবচেয়ে পবিত্র আর শক্তিশালী পারিবারিক বন্ধন বলে বিবেচনা করা হয়। প্রত্যেক বাবার কাছেই নিজের মেয়ে হচ্ছে রাজকুমারী।







কেননা একজন বাবা তার মেয়ের জন্যে সবকিছুকে তুচ্ছজ্ঞান করতে রাজি। কিন্তু সেই রাজকুমারীর হাতেই যদি স্নেহশীল বাবার মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ড ঘটে, তাহলে পারিবারিক সম্পর্কের প্রতি মানুষের আস্থা ক্রমেই নড়বড়ে হয়ে যায়।

এমনই একটি অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের বস্তী জেলার নইডা আট্টাতে।







ছেলেবন্ধুকে সাথে নিয়ে নিজের বাবা বিশ্বনাথ সাহুকে মেরে ফেলেছেন তারই মেয়ে।

গতকাল রবিবার বিশ্বনাথ সাহুকে খুব খারাপ অবস্থায় স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আজ সোমবার ভদ্রলোক মারা যাবার পর তাঁর স্ত্রী নিজের মেয়ে ও তার ছেলে বন্ধুর বিরুদ্ধে মামলা করেন।

মামলার জবানবন্দিতে তিনি জানান, ভোর ৪টার দিকে তাঁর স্বামী নিজের মেয়ের রুম থেকে আজব শব্দ শুনতে পান, তারপর তার রুমে যান। রুমে গিয়ে তিনি মেয়ের বয়ফ্রেন্ড ধর্মেন্দ্র ও তার মেয়েকে সেখানে আপত্তিকর অবস্থায় দেখতে পান।







মেয়েকে এই অবস্থায় দেখে প্রতিবাদ করার কারণে ধর্মেন্দ্র ও নিজের মেয়ে মিলে বাবা বিশ্বনাথকে মারতে শুরু করেন। দুজনে মিলে তাকে মারতে মারতে তিন তলার ছাদ থেকে নীচে ফেলে দেন। পাশের বাড়ির লোকজনের সহযোগিতায় তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও শেষ পর্যন্ত বাঁচানো যায়নি।







সপ্তাহে কতবার সহবাস করলে আপনার স্বাস্থ্যের জন্য ভালো জানুন

সপ্তাহে কতবার সহবাস করলে- সপ্তাহে কতবার সহবাস করা উচিত? রোজ, একদিন অন্তর নাকি শুধুমাত্র সপ্তাহ শেষে? সম্প্রতি আমেরিকান জার্নাল অফ কার্ডিওলজি তে প্রকাশ হয়েছে একটি আর্টিকেল ।

সেখান থেকে জানা যাচ্ছে যে সব পুরুষেরা সপ্তাহে দুবার সেক্স করেছেন তাঁদের হার্ট যারা একবারও সহবাস করেন নি তাদের থেকে অনেকটা ভালো ।







তাই কার্ডিওভাসকুলার ডিজিজ রুখতে পুরুষদের সক্রিয় সেক্স লাইফ থাকা উচিত ।

অর্গাজমের সময় অক্সিটোসিন হরমোন উদ্দীপীত হয় । এর ফলে আপনার রক্তচাপ কম থাকে । আর আমরা সবাই জানি উচ্চ রক্তচাপ হার্টের জন্য কতটা ভয়ঙ্কর ।

এছাড়াও স্ট্রেসের মধ্যে থাকলে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভবনা অনেকটা বেড়ে যায় ।







আর আমরা সবাই জানি সেক্সের থেকে ভালো স্ট্রেসবাস্টার আর কিছুই হতে পারে না । এছাড়াও নিয়মিত যৌন সম্ভোগ করলে আপনার ওজনও কমবে । এছাড়াও সেক্সের পর ঘুমও ভালো হয় । ফলে আপনার হার্ট ভালো থাকবে ।







আ স্টাডি ইন বায়োলজিকাল সাইকোলজি থেকে জানা গেছে যাঁরা নিয়মিত মিলিত হন তাদের ব্লাড প্রেসার কন্ট্রোলে থাকে । ফলে এই ব্যক্তিদের হৃদয় সংক্রান্ত রোগের সম্ভবনা অনেকটা কম থাকে । তাই সপ্তাহে অন্তত দু‘বার করে অবশ্যই আপনার পার্টনারের সঙ্গে মিলিত হন ।







LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here